অধ্যক্ষের বাণী

আমাদের এই ঐতিহ্য মন্ডিত কলেজের শিক্ষার্থীরা পরিপূর্ণ ও সমৃদ্ধ মানুষ হিসেবে গড়ে উঠে দেশ ও জাতিকে সার্বিক সেবা প্রদান করুক এই আমদের কামনা। আজকের এই কলেজটি অদূর ভবিষ্যতে একটি অপ্রতিদ্বন্দ্বি মহিলা বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হয়ে নারী শিক্ষা ক্ষেত্রে এক অনন্য ভূমিকা রাখবে এটি আমি মনে প্রাণে বিশ্বাস করি। আমদের ওয়েব সাইটের মাধ্যমে শিক্ষার্থী,অভিভাবক ও শুভানুধায়ীদেরকে সকল প্রয়োজনীয় তথ্য সুবিধা দিতে পারার আশাবাদ ব্যক্ত করছি। এ কলেজের উত্তরোত্তর শ্রীবৃদ্ধি ঘটুক, মহান আল্লাহ্'র কাছে এই কামনা করি।

উপাধ্যক্ষের বাণী

দিনাজপুর সরকারি মহিলা কলেজ, দিনাজপুরের ঐতিহ্যবাহী নারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। স্নাতক (সম্মান) পযর্ন্ত পাঠদান কারী এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভবিষ্যৎ সমৃদ্ধি ও সম্ভাবনার প্রবল সুযোগ রয়েছে। সম্ভাবনাময় এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে উন্নীত হওয়ার সমূহ উজ্জ্বল সম্ভাবনা রয়েছে এতে কোন সন্দেহ নেই। উত্তর জনপদের এ প্রতিষ্ঠানটির সাথে সংশ্লিষ্ট অত্র অঞ্চলের সকলের প্রতি রইল প্রীতি ও শুভেচ্ছা।

Visitor Counter

free website counter

এক নজরে
দিনাজপুর সরকারি মহিলা কলেজ

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম দিনাজপুর সরকারি মহিলা কলেজ, দিনাজপুর
প্রতিষ্ঠাকাল • বেসরকারি কলেজ হিসাবে প্রতিষ্ঠাঃ ০১ জুলাই, ১৯৬৬ ।
• সরকারিকরণঃ ০৭ মে, ১৯৭৯ ।
অধ্যক্ষ প্রফেসর আঞ্জুমান আখতার
মোট ছাত্রীর সংখ্যা প্রায় ৫০০০ জন।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংক্ষিপ্ত বর্ণনা

১। দিনাজপুর সরকারি মহিলা কলেজ বৃহত্তর দিনাজপুর এর সর্ববৃহৎ নারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। দিনাজপুর শহরের প্রাণকেন্দ্র দক্ষিণ বালুবাড়ী এলাকায় কলেজটি অবস্থিত। কলেজটি ১৯৭৯ সালে সরকারিকরণ করা হয়। কলেজটিতে বর্তমানে এইচ.এস.সি, ডিগ্রি পাস এবং ৬ (ছয়)টি বিষয়ে অনার্স কোর্স চালু আছে। কলেজটির শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ৫০০০ জন।

২। অত্র কলেজ দিনাজপুর শহরের প্রাণ কেন্দ্রে দক্ষিন বালুবাড়ীর নিমনগর মৌজায় অবস্থিত। ১৯৫৩ সালে এস এন কলেজের নামে রেজিষ্ট্রিকৃত ১১.৬৫ একর ভূমি যা পরবর্তীতে বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা বিভাগের পক্ষে দিনাজপুর সরকারি মহিলা কলেজের নামে রেজিষ্ট্রকৃত হয়। কলেজের মোট জমি দুই খন্ডে বিভক্ত । খন্ডিত অংশের পরিমান ৪৪ শতাংশ। অন্য অংশের পরিমান ১১.২১। খন্ডিত অংশ কলেজের বিজ্ঞান ভবনের পূর্বাংশে অবস্থিত।

৩। কলেজের মালটিমিডিয়া ক্লাস রুম ২টি, অত্যন্ত সুসজ্জিত মালটিমিডিয়া কক্ষ বিজ্ঞান ভবনে অবস্থিত। কম্পিউটার ল্যাবটি কলা ভবনের দোতলায় অবস্থিত। ল্যাবে কম্পিউটারের সংখ্যা ৩০টি। কম্পিউটার ল্যাবে নিয়মিত তথ্য ও প্রযুক্তির ক্লাস অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিদিন ২টি তথ্য ও প্রযুক্তির ক্লাস অনুষ্ঠিত হয়।

৪। পরিছন্নতা সংক্রান্ত কার্যক্রম প্রতিদিনই নিয়মিতভাবে করা হয়ে থাকে। পরিছন্নতা কর্মীরা প্রতিদিন শ্রেণি কার্যক্রম শুরু হওয়ার পূর্বেই শ্রেণি কক্ষসহ টয়লেট সমূহ পরিস্কারের কাজটি সম্পন্ন করে। তবে কলেজে কোন স্থায়ী পরিছন্নতা কর্মি নাই। খন্ডকালীন একজন চিকিৎসক, চিকিৎসা সেবা প্রদান করে থাকেন।

৫। অত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ২টি প্রমান সাইজের খেলার মাঠ রয়েছে। মাঠ ২টির ১টি কলা ভবনের সামনে, অন্যটি বিজ্ঞান ও সামাজিক বিজ্ঞান ভবনের সমুখে অবস্থিত । উক্ত মাঠ সমূহে ঞ-২০ ক্রিকেট টূর্নামেন্ট, ভলিবল প্রতিযোগিতা, হ্যান্ডবল প্রতিযোগিতা, ব্যাডমিন্টন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।


৬। প্রতিষ্ঠানের যাবতীয় অঈ’ঝ এর সংখ্যা ৩২টি যেহেতু প্রতি খাতে ছাত্রীদের নিকট হতে আদায়কৃত ফির পরিমান অত্যন্ত কম। স্বাভাবিক ভাবে প্রতি মাসের ৭ তারিখের মধ্যে সংশ্লিষ্ট খাতে অর্থ স্থানারিত হয়। জনতা ব্যাংকের মাধ্যমে যাবতীয় লেনদেন সম্পন্ন হয়। বিধায় প্রতি মাসের ৭ তারিখের পূর্বে নিখুঁত ও পুর্নাঙ্গ তথ্য উপাস্থাপন জটিল ও কষ্টকর। তবে প্রতি মাসের লেন দেনের বিবরণী নিয়মিত ভাবে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে প্রেরণ করা হয়। সরকারি পরিপত্র মোতাবেক যাবতীয় ব্যয় সম্পন্ন করা হয়।

সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

১৯৪১ সালে কলকাতায় যখন ২য় বিশ্বযুদ্ধের ঢেউ আছড়ে পড়ে সে সময় রিপন কলেজের অধ্যক্ষ রবীন্দ্র নারায়ন ঘোষ দিনাজপুর এসে রিপন কলেজের দিনাজপুর শাখা খেলার প্রাথমিক পদক্ষেপ নেন। ১৯৪২ সালের ১লা জুলাই মহারাজা হাইস্কুলের একটি ভবনে রিপন কলেজ দিনাজপুর শাখা যাত্রা শুরম্ন করে। পরবর্তীতে ১৯৪৭ সালে দেশ বিভাগের সময় কলেজের অধ্যক্ষ সহ শিক্ষকদের বড় অংশ কলকাতায় গমন করলে কলেজটিতে সংকট দেখা দেয়। এ সময় প্রখ্যাত দার্শনিক গোবিন্দ চন্দ্র দেব অধ্যক্ষ দায়িত্ব গ্রহণ করলে যাত্রা শুরম্ন হয় ঐতিহাসিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সুরেন্দ্রনাথ কলেজের। ১৯৫৪ সালে সুরেন্দ্রনাথ কলেজ তার নিজস্ব ভবন বালুবাড়ী মৌজায় স্থানামত্মরিত হয়। ১৯৫৬ সালে সোহরাওয়ার্দী মন্ত্রীসভার আমলে কলেজটি জাতীয়করনের উদ্যোগ গৃহীত হয়। এসময় তৎকালীন জেলা প্রশাসক মহোদয় কলেজ পরিচালনা পরিষদ, জেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন কাউন্সিলের প্রেসিডেন্টদের মতামত গ্রহণ করে কলেজের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় দিনাজপুর সরকারি কলেজ। ১৯৬৬ সালে কলেজটি সুইহারী মৌজায় স্থানামত্মরিত হলে পুরাতন ক্যাম্পাসের ভাগ্য নিয়ে সংকট দেখা দেয়। এমন সংকটকালে নারীদের জন্য কলেজ স্থাপনের দাবী উঠে জোরালোভাবে। তৎকালীন জেলা প্রশাসক এ.আর. চৌধুরী স্কয়ার ও তাঁর পত্নী সুলতানা চৌধূরীর দক্ষতা এবং সর্বসত্মরের দিনাজপুরবাসীর ঐকামিত্মক সহযোগীতায় যাত্রা শুরম্ন হয় দিনাজপুর সরকারি মহিলা কলেজের। মিসেস মাজেদা বেগম ছিলেন সেই সময়ের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ। কিন্তু ১৯৭১সালের মুক্তিযুদ্ধে পাক বাহিনী কলেজের ভিতরে আর্মি ক্যাম্প গড়ে তুললে নতুন করে সংকটে পড়ে যায় কলেজটি। স্বাধীনতা উত্তরকালে নতুন করে চালু হয় কলেজটি। ১৯৭৯সালে অধ্যক্ষ আতিউর রহমানের প্রচেষ্ঠায় কলেজটির জাতীয়করণ ঘটে। তখন থেকে এর নাম হয় দিনাজপুর সরকারি মহিলা কলেজ। কলেজটি সরকারিকরণ হলে অধ্যক্ষের দায়িত্ব নেন মিসেস ওমেদা বেগম।

কলেজ পরিসংখ্যান

এইচ এস সি: মোট শিক্ষার্থী সংখ্যা ১৭০০
মানবিক বিভাগ বিজ্ঞান বিভাগ ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ মোট
একাদশ শ্রেণী ৩৫০ ৩৫০ ১৫০ ৮৫০
দ্বাদশ শ্রেণী ৩৫০ ৩৫০ ১৫০ ৮৫০
ডিগ্রী: মোট শিক্ষার্থী সংখ্যা ৫১৬
মানবিক বিভাগ সামাজিক বিজ্ঞান বিভাগ
ডিগ্রী ১ম বর্ষ ১৬৯ ১৯৪ ৩৬৩
ডিগ্রী ২য় বর্ষ ০৬ ১৭০ ১৭৬
ডিগ্রী ৩য় বর্ষ ০৫ ১৫২ ১৫৭
অনার্স: মোট শিক্ষার্থী সংখ্যা ১৬৭১
১ম বর্ষ ৫১১
২য় বর্ষ ৪৯৫
৩য় বর্ষ ৪০৪
৪র্থ বর্ষ ২৬১
এইচ এস সি ডিগ্রী অনার্স
      বাংলা অর্থনীতি রাষ্ট্রবিজ্ঞান ইসলামের ইতিহাস
২০০৪--৪০%৩৬%৬০%১০%
২০০৫-১৭%৭৫%৬৭%৮৩%৩৩%
২০০৬-৬৯%১০০%৩৪%৬৭%৬৭%
২০০৭৬৬%৫৬%১০০%০%৭৮%৭৫%
২০০৮৭৬%৫৬%৯৪%১০০%৮৪%৮০%
২০০৯৭৬%৬৩%----
২০১০৭১%-----
২০১১৭৬%-----
উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার তথ্য
সাল বিভাগ মোট পরীক্ষার্থী মোট পাশ
২০০৭ মানবিক ৪৩৮ ২৭৮
বিজ্ঞান ২২৬ ১৬০
মোট ৬৬৪ ৪৩৮
২০০৮ মানবিক ৩৯৭ ৩০৫
বিজ্ঞান ৩২৮ ২৪১
মোট ৭২৫ ৫৪৬
২০০৯ মানবিক ৩৮৮ ৩০৪
বিজ্ঞান ৩৩৪ ২৩৯
মোট ৭২২ ৫৪৩
২০১০ মানবিক ৩৫০ ৩০৭
বিজ্ঞান ৪৮৫ ২৮২
মোট ৮৩৫ ৫৮৯
২০১১ মানবিক ৩৭৭ ২৯১
বিজ্ঞান ৩৯১ ২৮৯
মোট ৭৬৮ ৫৮০
স্নাতক (পাস) পরীক্ষার তথ্য
সাল বিভাগ মোট পরীক্ষার্থী মোট পাস
২০০৫ বি.. ০৩ ০১
বি.এস.এস. ০৩ ০০
মোট ০৬ ০১
২০০৬ বি.. ০৯ ০৫
বি.এস.এস. ১০ ০৮
মোট ১৯ ১৩
২০০৭ বি.. ২২ ১০
বি.এস.এস. ০৭ ০৬
মোট ২৯ ১৬
২০০৮ বি.. ১২ ০৯
বি.এস.এস. ৪৭ ২৪
মোট ৫৯ ৩৩
২০০৯ বি.. ০৬ ০৪
বি.এস.এস. ৫৮ ৩৬
মোট ৬৪ ৪০
স্নাতক (সম্মান) পরীক্ষার তথ্য
পরীক্ষার বছর বিষয় মোট পরীক্ষার্থী মোট পাস
2004 বাংলা 10 04
2005 08 06
2006 04 04
2007 অর্থনীতি 04 04
2008 18 17
2004 14 05
2005 03 02
2006 06 02
2007 01  
2008 02 02
2004 রাষ্ট্রবিজ্ঞান 05 03
2005 12 10
2006 15 10
2007 09 07
2008 32 27
2004 ইসলামের ইতিহাস 10 02
2005 09 03
2006 09 06
2007 08 06
2008 10 08
শ্রেণী উপবৃত্তি প্রাপ্ত ছাত্রী সংখ্যা সাধারণ বৃত্তি প্রাপ্ত ছাত্রী সংখ্যা
একাদশ 256 07
দ্বাদশ 22 07

নোটিশ বোর্ড